1. ajkerkonthosornews@gmail.com : Rafiqul Jasim : Rafiqul Jasim
  2. admin@ajkerkonthosor.com : admin2 :
  3. abdulkhaleque1977@gmail.com : abdul khaleque : abdul khaleque
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪৭ অপরাহ্ন

কমলগঞ্জে নোওয়া গাঁও সড়কের গাছে গাছে আল্লাহর জিকির! 

  • সময় : শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০২২
  • ২৮৪ ভিউ

রফিকুল ইসলাম জসিম, নিজস্ব প্রতিবেদক

মৌলভীবাজার জেলার অন্তর্গত কমলগঞ্জ থানার ভারতের সীমান্তবর্তী ইউনিয়ন ইসলামপুর৷ এ ইউনিয়নের মণিপুরি মুসলিম অধ্যুষিত একটি গ্রাম   নোওয়া গাঁও। এই গ্রামের মসজিদের পাশে চলা নইনারপার-কাঠালকান্দি রোড এটি এখন যথেষ্ট সুন্দর ও চলাচলের জন্য বেশ উপযোগী। এ রোডটির দু’ধারে বিভিন্ন গাছ লাগানো রয়েছে। আর এসব  গাছে গাছে সাঁটানো আল্লাহ তায়ালার নাম সম্বলিত প্লেকার্ড।

প্লেকার্ডে লেখা ‘সুবহানাল্লাহ’, ‘আল- হামদুলিল্লাহ’,‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ’, ‘আল্লাহু আকবর’ ও ‘আস্তাগফিরুল্লাহ’ জিকির।

‘নইনারপার- কাঠালকান্দি সড়কটি ব্যস্ততম সড়ক। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন কয়েকশ’ ছোট-বড় ভারী যানবাহনসহ হালকা যান চলাচল করে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হাজারও মানুষের চলাচল এই সড়ক ধরে। এ সড়কের গাছে গাছে সাঁটানো এ ধরণের লেখা সাধারণ মানুষের নজর সহজেই কাড়ছে। আকর্ষণ বাড়িয়েছে পথচারীদেরও। আর ধর্মপ্রাণ মানুষজন খুশি এমন মহৎ ও ব্যতিক্রমি এ উদ্যোগে নোওয়া গাঁও গ্রামের তরুণদের প্রতিষ্ঠিত হালাল ফাউন্ডেশন প্রতি৷

আজ ২৪ই জুন (শুক্রবার) বিকালে নোওয়া গাঁও গ্রামের কাতার প্রবাসী মোঃ আব্দুর রহিম, সিরাজুল ইসলাম,আব্দুল খালিক, দুবাই প্রবাসী সোহেল, মাইনুর উদ্দিন ও মিজানুর রহমান তাদের উদ্যোগে হালাল ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবক মুসলেমউদ্দীন, এবাদুর রহমান, দেলোয়ার হোসেন মাধ্যমে নোওয়া গাঁও গ্রামের ভিতরে ও কাঠালকান্দি রোড ও বিভিন্ন পয়েন্টে আল্লাহ তায়ালার নাম সম্বলিত ৩০টি প্লেকার্ডা গাছে গাছে সাঁটানো হয়েছে।

একেক গাছে একেক রকমের জিকির কিংবা আল্লাহ তালায়ার গুণবাচক বাক্য রয়েছে। কোন গাছে লিখা রয়েছে আলহামদুলিল্লাহ, কোন গাছে রয়েছে- সুবহানআল্লাহ, আসতাগফিরুল্লাহ। আবার কোন গাছে লা ইলাহা ইল্লালাহ ও আল্লাহু আকবার লিখা রয়েছে। মানুষের চলাচল পথে এসব জিকির সাধারণ মানুষকে বেশ আকর্ষণ করে। তারা খোদার জমিনে হাঁটেন। খোদার নাম নিয়ে। মুখে জারী রাখেন আল্লাহর তায়ালার জিকির।

গাছে গাছে এমন জিকির লেখা সম্পর্কে অত্র এলাকার সন্তান, মোকাবিল জামে মসজিদের খতিব হাফেজ আব্দুল মতিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাছে গাছে এমন জিকির সাঁটানোর মাধ্যমে এলাকায় একটি দীনী পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এবং আল্লাহর গুণবাচক এসব নামগুলো দেখলে পথচারীদের মধ্যে ক্ষণিকের জন্য হলেও জিকিরের জোশ তৈরী হয়।

নোওয়া গাঁও গ্রামের চৌমুহনীর বিশিষ্ট বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী জনাব মেহের উদ্দিন, হামিদুর রহমান ও এলাকায় মুরুব্বি মাজাউ উদ্দিন তারা জানান,হালাল ফাউন্ডেশন ইসলাম প্রচারের জন্য খুবই ভালো উদ্যোগ এটি। গাছে গাছে এমন জিকির সাঁটানোর জন্য রাস্তাকে ব্যাপক সুন্দর দেখা যায়। আমরাও চাই বাংলাদেশের প্রতিটি এলাকার রাস্তায় আল্লাহ তায়ালার এমন জিকির সাঁটানো থাকুক।

হালাল ফাউন্ডেশনের অন্যতম আব্দুর রহিম জানান, 
হালাল তারুণ্যের আলো একটি সমাজসেবামূলক প্রতিষ্ঠান। আমাদের মূল উদ্দেশ্য ভালো কিছু করা ও মানুষকে সহযোগিতা করা। তিনি আরো বলেন, ফাউন্ডেশন মাধ্যমে  ভবিষ্যতে শুধুই নিজ এলাকায় নয় অন্যান্য বাইরের জায়গায়গুলোতে এইভাবে ভালো কাজ করার চিন্তাভাবনা রয়েছে সে জন্য আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা।




Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরি আরোও পড়ুন
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Developed By Radwan Web Service