1. ajkerkonthosornews@gmail.com : Rafiqul Jasim : Rafiqul Jasim
  2. admin@ajkerkonthosor.com : admin2 :
  3. abdulkhaleque1977@gmail.com : abdul khaleque : abdul khaleque

অদম্য মেধাবী ইফফাতের সফল উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্প

  • মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১
  • ১৭৮৯ View

রফিকুল ইসলাম জসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের অধিকাংশ মেধাবী তরুণ যখন পড়াশোনা পাশ করে একটি চাকুরীর পেছনে ছুটে তখন একেবারে বিপরীত চিন্তা করে ইফফাত। বরং ছোট থেকেই স্বপ্ন বুনেছেন স্বাধীনভাবে নিজে কিছু করার। কখনো কলম হাতে দেখিয়েছে তার জাদু, মুখের জাদুতে ছিনিয়ে এনেছে হাজারো পুরস্কার। মেধা ও বুদ্ধি দিয়ে হয়েছেন সবার সেরা। ছোট থেকে সংকল্পবদ্ধ ও পরিশ্রমী মেয়েকে ইফফাত জাহান।

যশোর জেলার কেশবপুর এর সম্ভান্ত্র সরদার বংশের কোল আলো করে অধ্যাপক আব্দুর রশীদ ও শিক্ষিকা সুরাইয়া জাহান এর একমাত্র কন্যা আমাদের আজকের ইফফাত যার স্বপ্ন আকাশ ছোয়া। দশভুজা বংশের দশভুজা মেয়ে ইফফাত। যশোরের ডিসি, এডিসি থেকে শুরু করে সকল শিক্ষক তাঁকে এক নামে চিনে। যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন নিয়মিত, মেধাবী ও সংস্কৃতিমনা ছাত্রী ছিল। লকডাউনে সময়ে পরিবারের অনিচ্ছা সত্ত্বেও অনলাইনে ব্যাবসা শুরু করেন তিনি এখন “ইফফাত একাডেমি” নামে তার পরিচালিত একটা কোচিং সেন্টার রয়েছেন। নিজের পরিকল্পনার শুরুর গল্পটি আজকের কন্ঠস্বর’কে জানিয়েছেন ইফফাত নিজেই।

স্কুলের একজন তুখোড় মেধাবী শিক্ষার্থী ইফফাত। পিইসি, জেএসসি ও এস এস সি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ সহ সরকারি ও বেসরকারি মেধাবী বৃত্তি ও মোমিন গার্লস এ ১ম ও ২য় হওয়ায় এফএসআইবি থেকে পেয়েছে মেধা বৃত্তি। সে স্কুলের অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক সকল প্রতিযোগিতা (কবিতা আবৃত্তি, বিতর্ক, রচনা, বক্তৃতা, কুইজ, অভিনয়, বানান প্রতিযোগিতা, অভিনয়, যেমন খুশি তেমন সাজ, খেলাধুলা, ছবি আঁকা, বাংলাবিদ, ভাষন, কেরাত, গল্প বলা, বইপাঠ প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করছে।

ইফফাত শুধু পড়ালেখায় নয়, স্কুলের অভ্যন্তরীণ নানা কাজে নজরকাড়া ভূমিকা রাখার পাশাপাশি উপজেলা, জেলা পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ইতোমধ্যে বেশ সুনাম অর্জন করেছে। এছাড়া পরীক্ষায়ও তার ফলাফল ছিল ঈর্ষণীয়। সে স্কুলের অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক সকল প্রতিযোগিতা (কবিতা আবৃত্তি, বিতর্ক, রচনা, বক্তৃতা, কুইজ, অভিনয়, বানান প্রতিযোগিতা, অভিনয়, যেমন খুশি তেমন সাজ, খেলাধুলা, ছবি আঁকা, বাংলাবিদ, ভাষন, কেরাত, গল্প বলা, বইপাঠ ও বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে নানা পুরস্কার অর্জন করেছে ইতোমধ্যে। একক ও যৌথ উপস্থিত বক্তৃতা, অনুষ্ঠান সঞ্চালনাতেও সে বেশ পটু।

ইফফাত চ্যানেল আই “তারায় তারায় দ্বীপশিখা” অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তিতে সেমিফাইনাল পর্যন্ত, রচনাতে সারা বাংলাদেশ এ ২য় হওয়ায় চল্লিশ হাজার টাকা, বঙ্গবন্ধুর ভাষন, রচনা, উপস্থিত বক্তৃতায় বিভাগীয় চ্যাম্পিয়ন, কুইজ ও বিতর্কে নেতৃত্ব দিয়ে বিজয় ছিনিয়ে এনেছে এবং জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ে যেয়ে যশোরকে তুলে ধরেছে। গত ২০১৫, ২০১৬ ও ২০১৭ সালে সে “বর্ষ সেরা শিক্ষার্থী” নির্বাচিত হয়েছে। মোমিন গার্লস স্কুল আজও গর্ব করে ইফফাত কে নিয়ে।

মার্কস কুইজ কার্নিভাল (সাধারন জ্ঞান) সারা বাংলাদেশে ১ম স্থান অর্জন স্কুল পেরিয়ে কলেজেও (যশোর সরকারি এম এম কলেজ এর বিজ্ঞান ক শাখার) মেধার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে। মার্কস কুইজ কার্নিভালে সারা বাংলাদেশের ৩০,০০০ প্রতিযোগির মধ্যে সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেছে। ল্যাপটপ পেয়েছে কুইজ প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন হয়ে জিতেছে ৫০,০০০ টাকা। রেটিনাতে সারা বাংলাদেশ এর মধ্যে প্রথম হওয়ায় ৫০০০ টাকা। বিতর্কে ১০,০০০ টাকা। দুদক এর রচনা কমপিটিশন এ ৩০,০০০ টাকা। মুজিববর্ষে “আমার মুজিব ” প্রতিযোগিতায় উপজেলা, জেলা ও বিভাগে সেরা হয়ে জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কারের অপেক্ষায় আছে। এছাড়া কলেজের অভ্যন্তরীণ বাহ্যিক সকল প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

ইফফাত এখন একজন তরুণ উদ্যোক্তা (ফেসবুক গ্রুপ “যা চাই তাই পাই“), তার অধীনে ১০-১২ জন কাজ করছে। উদ্যোক্তার হওয়ার চিন্তাটা আসে লকডাউনে। এছাড়াও পূর্বে থেকে ইফফাত একাডেমি” নামে তার পরিচালিত একটা কোচিং সেন্টার রয়েছে। পরিবারের অবাধ্য হয়ে টিউশনি, ব্যবসা, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড, নিজের পড়াশোনা সবকিছু এক সাথে চালিয়েছি। পরিবারের কাছে এই পযন্ত দিয়েছি ৩ লক্ষ টাকা।”

অনন্য মেধার অধিকারী ইফফাতের ইচ্ছা ভবিষ্যতে একজন ডাক্তার হওয়া এবং একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা। জানতে চাইলে সে বলে, অসহায় মানুষের সেবা করবো এবং সেহেতু যশোরে আমার মামা একটা হসপিটাল করেছে। তাই আমার জন্মস্থান কেশবপুর এ একটা ফ্রী হসপিটাল নির্মাণ করবো.‘সমাজের গরিব, অসহায়,বিধবা, শিশু,বৃদ্ধদের নিয়ে কাজ করতে চাই । যাতে তারা এখানে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবার সুযোগ পায়।’

ইফফাত আরো বলে, ‘শিক্ষাসহ সবক্ষেত্রে জীবদ্দশায় বাবা আর মা ও শিক্ষকরা আমাকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন। তাঁদের উৎসাহে আমি এতদূর এগিয়েছি।’’ যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আহসান হাবীব পারভেজ নিউজ ভিশন‘কে বলেন, ‘ইফফাত এই স্কুলের সবচেয়ে ভালো এবং মেধাবী শিক্ষার্থী। সে পড়ালেখা ছাড়াও গার্ল গাইডস, কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন, উপস্থিত বক্তব্য, অনুষ্ঠান সঞ্চালনা, বিতর্কসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে বেশ সাফল্য পেয়েছে। আমরা তার আরো উজ্জ্বল ভবিষ্যত কামনা করছি।’

বাবা-মা ও ভরসা পান মেয়েকে দায়িত্ব দিয়ে। মামা-মামী, খালামনির মতো ডাক্তার হওয়ার স্বপ্নে বিভোর তুখোড় মেধাবী ও সৃজনশীল মেয়ে ইফফাত এর ঘর জুড়ে শুধুই পুরস্কার ও সম্মাননা, ছোটো খাটো একটা লাইব্রেরি তার বাসা। ইফফাত নিউজ ভিশনকে‘কে বলেন, “কাজ করতে,পড়তে ও পড়াতে আমার খুব ভালো লাগে। পাঠ্যবইয়ের পাশাপাশি পুরস্কার পাওয়া বইগুলো সব পড়ি, ফটোগ্রাফি করি। এডিপি এবং বিআরএসি স্বর্ণকিশোরী এর সাথে যুক্ত হয়ে সামাজিক ব্যাধি দূরীকরণে কাজ করছি আমি।” ইফফাতের স্বপ্ন পড়াশোনার পাশাপাশি হয়তো সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে আলোকিত করবে, হয়তোবা নেতৃত্বগুন দিয়ে আলোকিত করবে আমাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনকে।

ডাঃ দীপুমনি কে আইডল হিসেবে দেখা ছোট্ট ইফফাত এরও নামের পাশে থাকতে চাই ডাঃ,লেখিকা সাথে আইন বিভাগে মাষ্টার্স & বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হতে চাই এক্ষেত্রে ইফফাতের অনুপ্রেরণা হতে পারে নানা আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট আব্দুল খালেক।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন আজকের কন্ঠস্বর নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - editorajkerkonthosor@gmail.com

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ পড়ুন
© ২০২০ | আজকের কন্ঠস্বর কর্তৃক সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত
Developed By Radwan Ahmed